মঙ্গলবার 12 রবীউল আউওয়াল 1440 - 20 নভেম্বর 2018
বাংলা

অবৈধ সম্পর্কের ফলে দুঃশ্চিন্তা ও উৎকণ্ঠা

10532

প্রকাশকাল : 25-02-2015

পঠিত : 15510

প্রশ্ন

প্রশ্ন: বর্তমানে আমি মানসিকভাবে খুব ভেঙ্গে পড়েছি। মৃত্যু ছাড়া অন্য কিছু নিয়ে চিন্তা করতে পারছি না। আমার ভবিষ্যৎ নিয়ে অথবা মৃত্যু ছাড়া অন্য কোন বিষয়ে ভাবতে পারছি না। তবে, তা সত্ত্বেও আমি এই মুহূর্তে মরতে চাই না। আল্লাহর কাছে আশা করছি, আমি যে পাপ করেছি তিনি তা ক্ষমা করে দেবেন।
আমার সমস্যাটা হল, বিগত কয়েক মাস ধরে আমি এক নারীর সাথে গভীর সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছি। তার সাথে কোন হারাম সম্পর্ক করার আমার কোনোরূপ ইচ্ছা ছিল না। তবে যে কারণে আমি তার কাছাকাছি এসেছি সেটা হল আমি তাকে বুঝাতে চেয়েছি যাতে সে আত্মহত্যার ইচ্ছা থেকে সরে আসে। সে আত্মহত্যা করবে বলে মনস্থির করেছিল। সে উচ্চমাত্রার ট্যাবলেট গ্রহণ করত। আমি তাকে আত্মহত্যার পাপ থেকে বাঁচানোর জন্য নানা উপদেশ ও চেষ্টা করতাম। আমার ইচ্ছা ছিল তাকে জাহান্নাম থেকে বাঁচানো। তবে যা ঘটল তা হলো- ক্রমান্বয়ে আমাদের মাঝে সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হলো। তবে আমরা কখনো যৌনকর্মে লিপ্ত হই নি। এ ধরনের কাজে লিপ্ত হওয়ার কোনো ইচ্ছাও আমার ছিল না। মহিলাটি বিবাহিত। সমস্যা হলো- সে দাবি করছে, আমি একবার তার সাথে শারীরিকভাবে মিলিত হয়েছি। আমি তার কথা বিশ্বাস করি না। কেননা আমি কখনো আমার কাপড় খুলিনি। তবে সে ছিল অর্ধনগ্ন। আমার ভয় হচ্ছে, আমি গুনাহ করে ফেলেছি; যদিও আমি তার সাথে শারীরিকভাবে মিলিত হই নি। তবে যদি সত্যি তার দাবি অনুযায়ী এরূপ কর্ম করে থাকি, তবে তো আমার রক্ষা নেই। আমি তাকে বিশ্বাস করি না; কারণ আমি বুঝতে পেরেছি, সে আমার ভালো চায় না। আর তার আত্মহত্যার অভিনয়টি ছিল আমার নিকটবর্তী হওয়ার জন্য নিছক একটি ছলনা।
বর্তমানে আমি খুবই উৎকণ্ঠিত। আমি ঘুমাতে পারি না, কোনো কিছু করতে পারি না। যা হয়েছে তার জন্য আমি লজ্জিত। আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি, তিনি যেন আমাকে ক্ষমা করে দেন। আমি তো শুধু তাকে দোযখের আগুন থেকে বাঁচাতে চেয়েছিলাম; আর কিছু চাইনি। তবে এখন আমার ভয় হচ্ছে- আমি নিজেকে নিজে ধ্বংস করার কারণ হয়েছি।

উত্তর

আলহামদুলিল্লাহ

এক:

আপনাকে ঐনারীর সাথেবন্ধুত্বকরা থেকেআল্লাহরকাছেতওবাকরতেহবে। আপনি যে গুনাহর মধ্যে লিপ্ত হয়েছেন এর কারণ হচ্ছে-নারীদেরসাথেসম্পর্ককরা ওতাদের সাথে একাকীঅবস্থান করার ব্যাপারে আপনি শিথিলতা করেছেন। এ ধরনেরপাপআল্লাহরআযাব ও শাস্তিকেঅবধারিত করে দেয়। আরও জানতে 11149465 নং প্রশ্নোত্তর দেখুন।

দুই:

সেনারীরসাথে এবং অন্য কোন নারীর সাথে সম্পর্কথাকলে স্থায়ীভাবে সে সম্পর্ককর্তনকরতেহবে। কেননাএ ধরনেরঅধিকাংশসম্পর্কেরশেষপরিণতিহলোযিনা-ব্যভিচার অথবাঅবৈধভোগ-উপভোগ।নাউজুবিল্লাহ।আপনারকথামতো যদিওশুরুতে সম্পর্কটাছিলনিষ্কলুষ।তবেশয়তানমানুষেরমাঝেরক্তেরমতোইবিচরণকরে।আরজেনেরাখুন,বেগানা নারীরসাথেসম্পর্ককেকখনোনিষ্পাপ বলাযায়না।

এখনআপনারউচিতহলো-অনতিবিলম্বে আল্লাহর নিকটতওবাকরা;উত্তমতওবা।তওবা করারপদ্ধতিহল-যাঘটে গেছেসেব্যাপারেলজ্জিতহওয়া।এইসম্পর্কপরিপূর্ণভাবেছিন্নকরা।অন্যকোনোহারামসম্পর্ককায়েমনাকরারব্যাপারে অকপটপ্রত্যয় গ্রহণ করা।এইখারাপমহিলাটিআপনাকেধাঁধায় ফেলে কনভিন্স করতেচাচ্ছেআপনিতারসাথেখারাপকাজকরেছেন; যাতেকরে ভবিষ্যতেতারসাথেখারাপকাজেলিপ্তহওয়ার জন্যসেএটাকেছুতাহিসেবেব্যবহারকরতেপারে।যদিএমহিলারদাবিঅনুযায়ীতারসাথেখারাপকাজকরেওথাকেন তাহলেওযেনশয়তানএটাকেসুযোগহিসেবেব্যবহারকরতেনাপারেএবংআল্লাহররহমতথেকেআপনাকেনিরাশনাকরেদেয়।অন্যথায়শয়তানআপনাকেকুপথেটেনেনিয়েযাবেএবংখারাপকাজেলিপ্তহওয়ারবিষয়টিকেতুচ্ছজ্ঞানকরাবে।বারবারএ-কাজেলিপ্তকরাবেএবংএকপর্যায়েসেতওবাকরাদুষ্করহয়ে পড়েছেবলেপ্রবোধদিবে।শয়তানএ ধরনেরঅনুভূতিআপনারমধ্যেবদ্ধপরিকরকরতেচায়।তবেআল্লাহররহমতসুপরিসর।তাইআপনিদ্রুততওবাকরুন।আল্লাহ তাআলা বলেন: “বলে দিন, হেআমারবান্দাগণ, যারানিজদেরউপরবাড়াবাড়িকরেছতোমরাআল্লাহররহমতথেকেনিরাশহয়োনা।অবশ্যইআল্লাহসকলপাপক্ষমাকরেদেবেন।নিশ্চয়তিনিক্ষমাশীল, পরমদয়ালু।”[সূরাআয-যুমার:৫৩] যেব্যক্তিসত্যওখালেসতওবাকরেআল্লাহতারতাওবাকবুলকরেন।আল্লাহ তাআলা বলেন: “আরযারাআল্লাহরসাথেঅন্যইলাহকেডাকেনাএবংযারাআল্লাহযেজীবনকেহত্যাকরানিষেধকরেছেনযথার্থকারণছাড়াতাকেহত্যাকরেনা।আরযারাব্যভিচারকরেনা।আরযে ব্যক্তিএসবকরবেসেআযাবপ্রাপ্তহবে।কিয়ামতেরদিনতারআযাববর্ধিতকরাহবেএবংসেখানেসেঅপমানিতঅবস্থায়স্থায়ীহবে।তবেযেব্যক্তি তাওবাকরে নেয়, ঈমানগ্রহণ করেএবংসৎকর্মকরে সে ছাড়া।আল্লাহতাদেরপাপগুলোকেপুণ্যদ্বারাপরিবর্তনকরেদেবেন।আল্লাহঅতীবক্ষমাশীল, পরমদয়ালু।”[সূরাআল-ফুরকান: ৮৬-৭০]

আব্দুল্লাহইবনেমাসউদ (রাঃ)হতেবর্ণিত, জনৈক ব্যক্তিএকজনবেগানা নারীকেচুম্বনকরে ফেলেছিল। এরপর সেরাসূলুল্লাহসাল্লাল্লাহুআলাইহিওয়াসাল্লামেরকাছেএসেঘটনাটি তাঁর কাছে বর্ণনা করল। সে প্রেক্ষিতেকুরআনেরএআয়াতগুলোনাযিলহল: “আরতুমিসালাতকায়েমকরদিবসেরদু’প্রান্তেএবংরাতেরপ্রথমঅংশে, নিশ্চয়ভালোকাজমন্দকাজকেমিটিয়েদেয়।এটিউপদেশগ্রহণকারীদেরজন্যউপদেশ।”[সূরাহুদ:১১৪] লোকটিবলন: ইয়া রাসূলুল্লাহ, এটাকি শুধুআমারজন্য? তিনিবললেন: আমারউম্মতেরমধ্যেযেকেউএঅনুযায়ীআমলকরবেতাদের সবারজন্য। (অন্যএকবর্ণনায়) তিনিবলেন: “যেব্যক্তিবেগানা নারীরসাথে ফাহেশা ছাড়া অর্থাৎ যৌনাঙ্গে যিনা করাছাড়া আর সব কিছু করল।”[সহিহ মুসলিম, আত-তাওবা (৪৯৬৪)]

আপনিবেশি বেশিনেক আমল করুন, নামাজ পড়ুন,ইস্তেগফারকরুন।ভালোওদ্বীনদারবন্ধুবান্ধবের সাথে উঠাবসা করুন;যাতে করেএঅবৈধসম্পর্কেরবিকল্পহতেপারে।আরজেনেরাখুন, পশ্চিম দিক থেকে সূর্যোদয়ের পূর্ব পর্যন্ত তওবার দরজাউন্মুক্ত এবংমৃত্যুরগড়গড়াশুরুরআগপর্যন্তআল্লাহতাআলা বান্দার তওবাকবুলকরেন।

অবশেষেবলতেচাই, নিজেকে হেফাজতে রাখার জন্য আপনিঅনতিবলম্বে শরিয়তসিদ্ধপথগ্রহণ করুন।সেটা হচ্ছে-বিবাহ।বিবাহেরমাধ্যমেআপনিএ জাতীয়হারামে লিপ্তহওয়াথেকে নিজেকেবাঁচাতেপারবেন।

আল্লাহআমাদেরকেওআপনাকেতিনিযাপছন্দকরেনওভালোবাসেনতার উপরআমল করারতাওফিকদানকরুন।আমাদের নবী মুহাম্মদসাল্লাল্লাহুআলাইহিওয়াসাল্লামেরপ্রতিআল্লাহররহমতবর্ষিতহোক।

সূত্র: শাইখ মুহাম্মদ সালেহ আল-মুনাজ্জিদ

মতামত প্রেরণ