বুধবার 6 রবীউল আউওয়াল 1440 - 14 নভেম্বর 2018
বাংলা

যে ব্যক্তি কুরআনের কিছু অংশ মুখস্থ করে ভুলে গেছে তার কী করণীয়

প্রশ্ন

প্রশ্ন:যদি কোন ব্যক্তি কুরআনের মুখস্থকৃত অংশের কিছু ভুলে যায় এবং তওবা করে; তার তওবা কবুলের জন্য কি ভুলে যাওয়া অংশগুলো পুনঃপাঠ করা অপরিহার্য। যদি সেটা অপরিহার্য হয় তাহলে এখান থেকে ওখান থেকে বিক্ষিপ্তভাবে মুখস্তকৃত অংশগুলো সে ব্যক্তি কিভাবে পুনঃপাঠ করবে; যেগুলোর স্থান তার মনে নেই। তবে, যে সূরাগুলো পূর্ণাঙ্গভাবে মুখস্থ করেছে সেগুলো পুনঃপাঠের ক্ষেত্রে সমস্যা নাই। এমতাবস্থায় অনতিবিলম্বে পুনঃপাঠ করা কি তার উপর ফরজ; নাকি দীর্ঘ মেয়াদে, অবসর সময়ে পুনঃপাঠ করলেও চলবে?

উত্তর

আলহামদুলিল্লাহ।

এক:

নিঃসন্দেহেকুরআনঅধ্যয়নকরা, তেলাওয়াতকরাওমুখস্থকরাউত্তমনেকীরকাজ।কুরআনভুলেযাওয়ারআশংকারোধকরারজন্যনবীসাল্লাল্লাহুআলাইহিওয়াসাল্লামনিয়মিতকুরআনপড়ারপ্রতিউদ্বুদ্ধকরেছেন।অর্থাৎমুখস্থকৃতঅংশনিয়মিতপুনঃপাঠকরাওবারবারতেলাওয়াতকরা।

অন্যদিকেকুরআনভুলেযাওয়াগর্হিতকাজ।কারণএতেআল্লাহরকিতাবথেকেমুখফিরিয়েনেয়াওএকিতাবকেপরিহারকরারআলামতপাওয়াযায়।আরওজানতে 3704 নংপ্রশ্নোত্তরদেখুন।

দুই:

কুরআনভুলেযাওয়ারহুকুমকিএব্যাপারেআলেমগণমতানৈক্যকরেছেন:

কেউবলেন: কুরআনভুলেযাওয়াকবিরাগুনাহ।

কোনকোনমতে, গুনাহরকাজ; তবেকবিরাগুনাহরপর্যায়েপৌঁছবেনা।

কারোকারোমতে, এটিএমনএকটিমুসিবতযাবান্দারঅন্তরওদ্বীনদারিকেআক্রান্তকরে।এরফলেবান্দারকোনকোনআমলেরউপরআল্লাহরশাস্তিনামতেপারে।যদিওএটিকবিরাগুনাহনয়বাপাপনয়।এমাসয়ালায়এটিসর্বাধিকঅগ্রগণ্যঅভিমত।

কিন্তু, কোনহাফেযেকুরআনএরজন্যকুরআনতেলাওয়াতেগাফলতিকরাকিংবানিয়মিততেলাওয়াতেঅবহেলাকরাসমীচীনহয়।বরংহাফেযেকুরআনেরউচিতসওয়াবেরআশানিয়েদৈনিকনির্দিষ্টএকটিপরিমাণতেলাওয়াতকরা; যাতেকরেসেতারতেলাওয়াতধরেরাখতেপারে, ভুলেনাযায়এবংকুরআনেরহুকুম-আহকামথেকেউপকৃতহতেপারে।

আরওজানতেদেখুন: 127485নংপ্রশ্নোত্তর।

তিন:

কুরআনেরকিছুঅংশভুলেযাওয়াকুরআনপড়াছেড়েদেয়ারকারণেঘটেথাকে।কুরআনপড়াছেড়েদেয়ারকিছুকিছুরূপঅন্যকিছুরূপেরচেয়েজঘন্য।ইবনুলকাইয়্যেম (রহঃ) ‘আল-ফাওয়ায়েদ’নামকগ্রন্থে (পৃষ্ঠা-৮২) বলেন: তবেকুরআনথেকেমুখফিরিয়েনেয়াওকুরআনকেবাদদিয়েঅন্যকিছুনিয়েব্যস্তথাকারকারণেকুরআনভুলেযাওয়ামুসিবত।সওয়াবথেকেবঞ্চিতহওয়ারসাথেসাথেএমুসিবতেরকারণেআরওঅনেকমুসিবতসৃষ্টিহয়।

যেব্যক্তিকুরআনেরকিছুঅংশমুখস্থকরারপরভুলেগেছেতারজন্যনিম্নোক্তউপদেশ:

-যেসূরাগুলোমুখস্থছিলসেগুলোপুনঃপুনঃপাঠকরা; যাতেদ্বিতীয়বারসেগুলোকেমজবুতভাবেমুখস্থকরেনিতেপারে।

-পুনঃপাঠনিয়মিতঅব্যাহতরাখা; যাতেপুনরায়ভুলেনাযায়।

-একজনদক্ষশাইখেরকাছেমুখস্থওপুনঃপাঠচালুরাখা।

-কুরআনশরীফেরবড়বড়যেসবঅংশমুখস্থকরেছেযেমনপারাওহিযবইত্যাদি; সেগুলোপুনঃপাঠকরাএবংসম্পূর্ণসূরামুখস্থকরারচেষ্টাকরা।এভাবেপূর্বেমুখস্থকৃতঅংশপুনঃপাঠকরাওমুখস্থকৃতঅংশপুনরুদ্ধারকরারপ্রক্রিয়াতাকেগোটাসূরাটিমুখস্থকরারপ্রতিউদ্বুদ্ধকরবে।

-পক্ষান্তরে, কুরআনেরছোটছোটযেঅংশগুলোমুখস্থকরেভুলেগেছেযেমন- দুইআয়াতবাতিনআয়াতইত্যাদিসেগুলোনিয়েব্যস্তহবেনাএবংসেগুলোথেকেযাভুলেগেছেসেসবঅংশস্মরণকরারকষ্টকরাদরকারনেই।

যেমনটিইতিপূর্বেউল্লেখকরেছিতারউচিতসূরাওবড়বড়অংশগুলোমুখস্থকরণেসচেষ্টহওয়া।ছোটছোটযেঅংশগুলোমুখস্থকরেছেএবংকিছুকিছুভুলেগেছেসেগুলোস্মরণকরতেনাপারারকারণেসেব্যক্তিগুনাহগারহবেনা।ব্যক্তিনিজেনিজেরঅবস্থাবুঝারচেষ্টাকরবে।যদিকোনপাপেরকারণহয়তাহলেসেব্যক্তিআল্লাহরকাছেইস্তিগফারকরবেওতওবাকরবে।আরযদিঅবহেলা, আখেরাতেরপ্রতিবিমুখতাওদুনিয়ানিয়েব্যস্তহয়েপড়ারকারণেতাহলেসেব্যক্তিআখেরাতঅভিমুখীহবে।কেননাআখেরাতইহল- উত্তমওস্থায়ী।

এরপরবলব, সেব্যক্তিরউচিতঅনতিবিলম্বেভুলেযাওয়াঅংশগুলোপুনরায়মুখস্থকরেনেয়া।উৎসাহনিয়েচেষ্টাকরলেহিম্মতপাবে; আরবিলম্বকরলেওঢিলেমিদিলেজড়তায়পাবে।

ইবনুলমুবারক (রহঃ) আল-যুহদনামকগ্রন্থে (১/৪৬৯) ইবনেমাসউদ (রাঃ) থেকেবর্ণনাকরেনযে, তিনিবলেন: “এঅন্তরগুলোরস্পৃহাওচঞ্চলতাআছে।আবারজড়তাওপিছুটানআছে।সুতরাংস্পৃহাওচাঞ্চলতারসময়অন্তরগুলোকেকাজেলাগাওএবংজড়তাওপিছুটানেরসময়ছাড়দাও।”।

কোনসন্দেহনেইযেব্যক্তিকুরআনকেহারিয়েওভুলেগিয়েনিজেরদুর্বলতাওঅপরাধবোধঅনুভবকরছেএবংকিভাবেপুনরায়মুখস্থকরাযায়সেবিষয়েজানতেচাচ্ছেএটিতারঅন্তরেরগাফলতিথেকেজেগেউঠারআলামত।এইযারঅবস্থাতারউচিতঅনতিবিলম্বেপুনরায়মুখস্থকরারজন্যউদ্যোগীহওয়া; দেরীনাকরা।এক্ষেত্রেসেযদিতারপ্রচুরব্যস্ততা, দায়দায়িত্বওপরিবারকেসময়দেয়ারকারণেশুধুঅবসরসময়ছাড়াঅন্যকোনসময়পুনঃপাঠকরারসুযোগনাপায়তাতেওকোনঅসুবিধানেই।

আরওজানতেদেখুন: 161367নংপ্রশ্নোত্তর।

আল্লাহইভালজানেন।

সূত্র: ইসলাম জিজ্ঞাসা ও জবাব

মতামত প্রেরণ